শিরোনাম:
ঢাকা, সোমবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৪ ফাল্গুন ১৪৩০
---

Newsadvance24
বুধবার ● ১৬ আগস্ট ২০২৩
প্রথম পাতা » চট্টগ্রাম » কমলনগরের চৌধুরী বাজারে পাহারাদার নেই, চুরি আতঙ্কে ব্যবসায়ীরা
প্রথম পাতা » চট্টগ্রাম » কমলনগরের চৌধুরী বাজারে পাহারাদার নেই, চুরি আতঙ্কে ব্যবসায়ীরা
৪৯৪ বার পঠিত
বুধবার ● ১৬ আগস্ট ২০২৩
Decrease Font Size Increase Font Size Email this Article Print Friendly Version

কমলনগরের চৌধুরী বাজারে পাহারাদার নেই, চুরি আতঙ্কে ব্যবসায়ীরা

নিজস্ব প্রতিনিধি, নিউজ

 

---

কমলনগর (লক্ষ্মীপুর) : লক্ষ্মীপুরের কমলনগর উপজেলার চৌধুরী বাজারে দুই মাস ধরে পাহারাদার নেই। বাজার ব্যবস্থাপনার কমিটির দায়িত্ব অবহেলা এবং বিভিন্ন গ্রুপিংয়ের কারনে চুরি আতঙ্কে রয়েছেন সাধারণ ব্যবসায়ীরা। বিষয়টি নিয়ে রোববার বিকেলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সুচিত্র রঞ্জন দাসের বরাবরে একটি লিখিত অভিযোগ করেন ওই বাজারের ব্যবসায়ীদের পক্ষে মাস্টার ফার্মেসীর সত্ত্বাধিকারী মাস্টার আ. রহিম।

জানা যায়, ১০ বছর আগে উপজেলার চৌধুরী বাজারে ম্যানেজিং কমিটির ভোট হয়। ওই ভোটে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান ইউছুফ আলী মিয়া সভাপতি ও নুরুন নবী মামুন সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন। দুই তিন বছর ভালভাবে ওই কমিটি তাদের কার্যকম পরিচালনা করলেও পরে বিভিন্ন অনিয়মে কারণে ব্যবসায়ীদের মাঝে গ্রুপিং শুরু হয়। এতে প্রতিনিয়ত ওই বাজারে চুরি বাড়তে থাকে।

ব্যবসায়ীরা বলেন, গত দুই বছরে ওই বাজারে সেকান্তর কসমেটিক, মাস্টার ফার্মেসী, জামাল টেলিকম, নাজমা মেশিনারিজ, রাকিব বস্ত্র বিতান ও রাসেল ডেকোরেটরসহ অনেক দোকানে চুরির ঘটনা ঘটেছে। এতে নগট টাকাসহ ১০লক্ষাধিক টাকার বিভিন্ন মালামাল লুটে নেয় চোরের দল। বাজারে পাহারাদার থাকার পরও চুরি বাড়তে থাকায় তারা কমিটির লোকদের দায়ি করছেন।

ওই বাজারের মাস্টার ফার্মেসীর সত্ত্বাধিকারী মাস্টার আ রহিম বলেন, বাজার কমিটির বিভিন্ন অনিয়মের কারণে চুরি বাড়ছে। বর্তমানে বাজারে কোন পাহারাদার নেই। ব্যবসায়ীদের সাথে আলাপ করে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার বরাবরে অভিযোগ দিয়েছেন তিনি। তার দাবি ইউএনও স্যার এ বিষয়ে একটু তদারকি করলে বাজারে কোন অনিয়ম থাকবে না।

বাজার ব্যবস্থাপনা কমিটির সাধারণ সম্পাদক নুরুন নবী মামুন বলেন, এ অভিযোগের বিষয়ে তিনি কিছুই জানেন না। বাজারে কোন আয় না থাকায় পাহারাদার বাদ দেওয়া হয়েছে।

বাজার ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি ও চরমার্টিন ইউপি চেয়ারম্যান ইউছুফ আলী মিয়া বলেন, বাজারে ব্যবসায়ীদের বিভিন্ন গ্রুপিংয়ের কারণে সমস্যা বাড়ছে। এ বিষয়ে ইউএনও স্যারের সাথে কথা বলে সমস্যা উত্তরণের বিষয়ে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সুচিত্র রঞ্জন দাস বলেন, আমি এখনো ডাক ফাইল দেখিনি। অভিযোগ কপি দেখে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।





আর্কাইভ