শিরোনাম:
ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১ ডিসেম্বর ২০২২, ১৭ অগ্রহায়ন ১৪২৯
---

Newsadvance24
রবিবার ● ১৩ নভেম্বর ২০২২
প্রথম পাতা » চট্টগ্রাম » কমলনগরে শালাকে পিটিয়ে জখম করলেন দুলাভাই
প্রথম পাতা » চট্টগ্রাম » কমলনগরে শালাকে পিটিয়ে জখম করলেন দুলাভাই
২৪৬ বার পঠিত
রবিবার ● ১৩ নভেম্বর ২০২২
Decrease Font Size Increase Font Size Email this Article Print Friendly Version

কমলনগরে শালাকে পিটিয়ে জখম করলেন দুলাভাই

নিজস্ব প্রতিনিধি,  নিউজ এ্যাডভান্স

---

কমলনগর (লক্ষ্মীপ : লক্ষ্মীপুরের কমলনগরে বোনের কাছে ভাগনার বিরুদ্ধে মাদক সেবনের অভিযোগ করায় সালা আকবরকে পিটিয়ে মারাত্মক জখম করার অভিযোগ উঠেছে দুলা ভাই দুলাল মাজি প্রকাশ জাহাঙ্গিরের বিরুদ্ধে।
বৃহস্পতিবার বেলা১১ টার দিকে উপজেলার মতিরহাট সংলগ্ন ভান্ডারিপাড়া এলাকার মেঘনা নদীর পাড়ে এ ঘটনা ঘটে। এ সময় সালা আকবরকে এলোপাতাড়ি পিটিয়ে নদীতে ফেলে দেওয়া হয়। পরে স্থানীয়রা মুমূর্ষু অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে কমলনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ভর্তি করেন। তার মাথা ও শরীরের বিভিন্ন জায়গায় আঘাতের ছিহ্ন রয়েছে।
আকবর হোসেন চর কালকিনি ইউনিয়নের চর সামসুদ্দিন গ্রামের কালু মাঝির ছেলে। অভিযুক্ত দুলাল মাঝি একই এলাকার বাসিন্দা।
প্রত্যক্ষদর্শী সুত্রে জানা যায়,বৃহষ্পতিবার সকালে আকবর হোসেন ভান্ডারিপাড়া নদীর পাড়ে তার ছোট নৌকার ওপর জাল বুনতেছে। এই সময় দুলাভাই দুলাল মাজি হঠাৎ অতর্কিতভাবে লাঠি দিয়ে তাকে এলোপাতাড়ি পেটাতে থাকে। ওই সময় আকবর হোসেনের মাথা ফেটে, হাত ভেঙ্গে ও শরীরের বিভিন্ন জায়গায় গুরুতর জখম করা হয়।এক পর্যায়ে আকবরকে মৃত ভেবে নদীতে ফেলে দেয়। বিষয়টি পার্শ্ববর্তী লোকজন দেখে আকবরকে নদী থেকে উদ্ধার করে কমলনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। বর্তমানে সে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।
হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আকবর হোসেন শনিবার সকালে সাংবাদিকদের জানান, আমার ভাগনা রাজু(১৭) গাজা সেবন এবং বিভিন্ন লোকদের সাথে খারাপ আড্ডা দিচ্ছে মর্মে এলাকার লোকজন আমাকে জানায়। দুলা ভাই বাড়িতে না থাকায় এক মাস আগে বিষয়টি আমি বোনকে জানাই। তখন আমার বোন বিষয়টি সহজ ভাবে মেনে নেয়নি। পরে দুলাভাই বাড়িতে এসে তার ছেলের বিরুদ্ধে বলায় আমাকে বিভিন্ন ধরনের হুমকি ধমকি দিতে থাকে। বৃহষ্পতিবার সকালে আমি আমার নৌকায় জাল বুনতেছি। হঠাৎ দুলাল মাজি আমার ওপর অতর্কিত হামলা করে নদীতে ফেলে দেয়। পরে স্থানীয় কামাল মাঝি, ছিদ্দিক মাঝি ও জাহের মাঝি আমাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যায়।
এ বিষয় জানতে অভিযুক্ত দুলাল মাঝির সাথে মুঠোফোনে কথা বলতে চাইলে তিনি সাংবাদিক পরিচয় শুনে ফোন কেটে দেন।
কমলনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ সোলাইমান জানান এখন পর্যন্ত কেউ অভিযোগ করেনি।অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।





আর্কাইভ