শিরোনাম:
ঢাকা, বুধবার, ১৮ মে ২০২২, ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯

Newsadvance24
বুধবার ● ১৩ এপ্রিল ২০২২
প্রথম পাতা » জাতীয় » নিরপেক্ষ নির্বাচনেই আক্ষেপের সমাপ্তি হবে : আ স ম রব
প্রথম পাতা » জাতীয় » নিরপেক্ষ নির্বাচনেই আক্ষেপের সমাপ্তি হবে : আ স ম রব
১৩৪ বার পঠিত
বুধবার ● ১৩ এপ্রিল ২০২২
Decrease Font Size Increase Font Size Email this Article Print Friendly Version

নিরপেক্ষ নির্বাচনেই আক্ষেপের সমাপ্তি হবে : আ স ম রব

নিজস্ব প্রতিনিধি, নিউজ এ্যাডভান্স

---

ঢাকা : দেশে শক্তিশালী বিরোধী দল দেখতে না পাওয়া সরকারের আক্ষেপের প্রতিক্রিয়ায় ক্ষমতা থেকে পদত্যাগ করে নিরপেক্ষ নির্বাচনের লক্ষ্যে সরকারকে উদ্যোগ গ্রহণের আহ্বান জানিয়ে ডাকসুর সাবেক ভিপি ও জেএসডি সভাপতি আ স ম আবদুর রব গণমাধ্যমে বিবৃতি প্রদান করেছেন।
এই মুহূর্তে জাতীয় সংসদ ভেঙ্গে ক্ষমতা থেকে পদত্যাগ করে জাতীয় সরকারের অধীনে নির্বাচন
দিয়ে ‘জনগণের রায়’ কার পক্ষে তা প্রমাণ করাই হবে যুক্তিসংগত কাজ। ‘সরকারি দল’ এবং ‘বিরোধী দল’ এই দায়িত্ব নির্ধারণ করা নির্ভর করে জনগণের উপর, কোন দলের উপলব্ধি বা বিবেচনার উপর নয়।
গণতন্ত্র’ মানবাধিকার, আইনের শাসন ও জনগণের ভোটাধিকার নিশ্চিত হলে শক্তিশালী বিরোধী দলের অভাবজনিত সরকারের আক্ষেপেরও পরিসমাপ্তি ঘটবে। এই ‘ঐতিহাসিক সত্য’ গ্রহণ করাই হবে বর্তমান সরকারের জন্য ন্যায় সঙ্গত।

বিবৃতিতে আ স ম রব বলেন, শুধুমাত্র ক্ষমতাকে দীর্ঘায়িত করার জন্য প্রজাতন্ত্রের প্রশাসন ও আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে অসাংবিধানিকভাবে ব্যবহার করে সরকার বলপ্রয়োগের রাজনৈতিক পদ্ধতি অনুসরণ করায় রাষ্ট্রের অপূরণীয় ক্ষতি সাধিত হয়েছে।
বিচারবহির্ভূত হত্যাসহ বেআইনি হত্যাকাণ্ড, গুমসহ নাগরিক নিপীড়ন, নির্যাতন, নিষ্ঠুর, অমানবিক ও অপমানজনক আচরণ,রাজনৈতিক, নিবর্তনমূলক ও অন্যায়ভাবে গ্রেপ্তার এবং বিচারের মুখোমুখি করা, বিদেশে অবস্থানরত ব্যক্তি ও তাদের পরিবারের ওপর রাজনৈতিক প্রতিহিংসামূলক পদক্ষেপ, বিচারবিভাগের উপর হস্তেক্ষেপ, সাংবাদিকদের ওপর সহিংসতা ও হুমকিসহ বাকস্বাধীনতা ও সংবাদমাধ্যমের ওপর বিধিনিষেধ, ব্যক্তিগত গোপনীয়তার ওপর বেআইনি হস্তক্ষেপ, ইন্টারনেট ব্যবহারকারীদের স্বাধীনতার ওপর গুরুতর বিধিনিষেধ; ব্যক্তি স্বাধীনতা, শান্তিপূর্ণ সমাবেশে হস্তক্ষেপসহ মানবাধিকারের চরম লঙ্ঘন, সীমাহীন দুর্নীতি, দিনের ভোট রাতে করাসহ ভোটাধিকার হরণ এবং সর্বোপরি ভয়ের সংষ্কৃতি ছড়িয়ে দিয়ে সরকার রাজনীতির স্বাভাবিক বিকাশকে বাধাগ্রস্থ করেছে। ফলে সরকার শক্তিশালী বিরোধী দলের উপস্থিতি অনুভব করতে ব্যর্থ হচ্ছে।
জাতি এ থেকে মুক্তি চায়।
আসুন, বিদ্যমান বাস্তবতায় গণতান্ত্রিক ও নৈতিক বাংলাদেশ বিনির্মাণে জাতীয় ঐক্যমতের ভিত্তিতে নিরপেক্ষ নির্বাচনের আয়োজন করে ‘সরকারি দল’ এবং ‘বিরোধী দল’ নির্ধারণের দায়িত্ব রাষ্ট্রের মালিক ‘জনগণ’কে ফিরিয়ে দেয়ার উদ্যোগ গ্রহণের মাধ্যমে আমাদের আশু রাজনৈতিক করণীয় সম্পাদন করি।





আর্কাইভ